জরুরী সাধারণ সভা ও কর্মশালা

প্রিয় সদস্য
শুভেচ্ছা রইল। আপনারা নিশ্চয় জানেন আমাদের প্রিয় সংগঠন টিআরএনবি এক ধরনের ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এই পরিস্থিতিতে আমাদের একত্রিত হওয়া অত্যন্ত জরুরী। সংগঠনের ভবিষ্যত গন্তব্য কি হবে? কিভাবে আমরা সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে নিতে পারি সে ব্যাপারে আলোচনা হওয়া খুবই প্রয়োজন। টিআরএনবি’র কার্যনির্বাহী কমিটি মনে করে, এই মুহুর্তে সংগঠনের জরুরী সাধারণ সভা হওয়া প্রয়োজন। সেখানেই সংগঠনের ভবিষ্যত নেতৃত্ব কিভাবে আসবে, নির্বাচন কিভাবে হবে বা এই পরিস্থিতিতে আমাদের করণীয়ই বা কি- তা নিয়ে আলোচনা হওয়া দরকার।
সংগঠনের কার্যনির্বাহী কমিটি এমন পরিস্থিতিতে আগামী ২১ সেপ্টেম্বর জরুরী সাধারণ সভা আহবান করেছে। সভায় সবার মনোযোগ নিরবিচ্ছিন্ন করতে সভাটি ঢাকার বাইরে গাজীপুরের ড্রীম স্কয়ার রিসোর্টে সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হবে।
রাজধানীর বাইরে এই ধরনের সভা করতে খরচের একটা বিষয় আছে। তাই আমরা একই সঙ্গে একটি কর্মশালার আয়োজন করেছি। কর্মশালাটি শুরু হবে ওই দিন সকালে। কর্মশালা শেষে আমরা জরুরী সাধারণ সভায় বসব। ‘ফিউচার টেকনোলজি ফর ব্রডব্যান্ড কানেকটিভিটি’ শীর্ষক এই কর্মশালাটির সব ধরনের খরচ দিতে সম্মত হয়েছে ফাইবার এট হোম। দুই দিন ব্যাপী কর্মশালা চলবে।
প্রিয় সদস্য
আমরা সবাই এই পরিস্থিতিতে একত্রিত হয়ে কিভাবে সংগঠনকে এগিয়ে নেয়া যায় সে ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করব। এই কর্মশালা এবং জরুরী সাধারণ সভায় আপনার উপস্থিতি একান্ত কাম্য।

জরুরী সাধারণ সভা ও কর্মশালার সূচী-
২১ সেপ্টেম্বর-
সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে গাজীপুরের উদ্দেশ্যে রওনা।
সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে কর্মশালা শুরু।
দুপুরে এক ঘন্টা মধ্যাহ্ন ভোজের বিরতি।
বিকাল ৪টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত কর্মশালা চলবে।

সন্ধ্যা ৬টায় জরুরী সাধারণ সভা।
আলোচ্যসূচী-১ এই পরিস্থিতিতে আমাদের করণীয়ই বা কি?
আলোচ্যসূচী-২ ভবিষ্যত নেতৃত্ব কিভাবে আসবে?
আলোচ্যসূচী-৩ নির্বাচন কিভাবে হবে?
আলোচ্যসূচী-৪ বিবিধ।
নৈশভোজ রাত ৯টায়।

২২ সেপ্টেম্বর-
সকাল ১০টায় দ্বিতীয় দিনের কর্মশালা শুরু।
দুপুর সাড়ে ১২টায় কর্মশালা শেষ।
মধ্যাহ্ন ভোজ শেষে দুপুর ২টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা।

(কাজী সোহাগ)
সাংগঠনিক সম্পাদক
সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে
টিআরএনবি|